মহেশপুরে এমপি’র দেওয়া বরাদ্ধকৃত রাস্তা সংস্কারে বাধা

মহেশপুর (ঝিনাইদহ) সংবাদদাতা, শহিদুল ইসলাম ঃ ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার ১১নং মান্দারবাড়ীয়া ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডয়ের যদুনাথপুর গ্রামের সরকারী রাস্তা নির্মানে বাধা দেওয়ায় গ্রামবাসীর পক্ষে মহিউদ্দীন নামের এক ব্যক্তি সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দায়ের করেছে।

অভিযোগসূত্রে জানাযায়, উপজেলার ১১ নং মান্দারবাড়ীয়া ইউনিয়নের ৯ নং ওয়ার্ডের যদুনাথপুর গ্রামের সরকারী ১ নং খতিয়ানের ৬৩৯ নং এস এ দাগের ৯৮৬ নং আর এস দাগের রাস্তার জমি অবৈধ দখলদারদের হাত থেকে মুক্ত করনের জন্য গ্রামবাসীর পক্ষে মহিউদ্দীন এবং ফারুক হোসেন নামের দুই ব্যক্তি জেলা প্রশাসক সহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে অনুলিপি প্রেনর করেছেন।

গ্রামবাসীর অভিযোগ যদুনাথপুর গ্রামের এস এ ১ নং খতিয়ানের ৬৩৯ নং দাগের হাল ৯৮৬ নং দাগের উপর দিয়ে যদুনাথপুর তেতুল তলা মোড় হতে বাওড় পর্যন্ত একটি সরকারী রাস্তা রয়েছে । কিন্তু সে রাস্তাটি এলাকার প্রভাবশালীরা দীর্ঘদিন যাবৎ ভোগ দখল করে রেখেছে।

যার কারনে যদুনাথপুর গ্রামবাসী মাঠ হতে ফসলাদি আনা ও চলাচলের জন্য খুবই অসুবিধা হয়। এরফলে গ্রামবাসী রাস্তাটি সংস্কারের নিমিত্তে ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসকের নিকট আবেদন করলে জেলা প্রশাসক বিষয়টি আমলে নিয়ে মহেশপুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার উপর দায়িত্ব অর্পন করেন।

অতপর বিষয়টি উপজেলা ভুমি অফিসারের সার্ভেয়ার দ্বারা তদন্ত পূর্বক সীমানা নির্ধারন করে প্রয়োজনীয় কাগজপত্র দাখিল করেন। সে প্রেক্ষিতে মহেশপুর উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা বরাবর আবেদন করলে মাননীয় এমপি মহোদয়ের বরাদ্ধ হইতে রাস্তাটি সংস্কারের জন্য অর্থ বরাদ্ধ দেন। সেই বরাদ্ধকৃত টাকা দ্বারা গত ৯/৭/২০১৮ ইং তারিখে রাস্তাটি সংস্কারের কাজ শুরু হয়।

এমতাবস্থায় হঠাৎ পুর্বের ভুক্ত ভোগী কিছু লাঠিয়াল বাহিনী উপস্থিত হয়ে রাস্তা সংস্কারের কাজ বন্ধ করে দেওয়া সহ বিভিন্ন ধরনের হুমকী প্রদান করে। এঘটনায় গ্রামবাসীর পক্ষে ১৬ ই জুলাই মহিউদ্দীন নামের এক ব্যক্তি বাদী হয়ে সড়ক ও পরিবহন মন্ত্রনালয় সহ সরকারের বিভিন্ন দপ্তরে অনুলিপি প্রেনর করেছেন। অনুলিপি প্রেনর সড়ক ও পরিবহন মন্ত্রনালয় ঢাকা,চেয়ারম্যান দুর্নিতী দমন কমিশন ঢাকা,জাতীয় প্রেসক্লাব ঢাকা,ঝিনাইদহ প্রেসক্লাব, ঝিনাইদহ অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব), ঝিনাইদহ পুলিশ সুপার ও ওসি মহেশপুরকে অনুলিপি প্রেরণ করেছেন।

বিষয়টি নিয়ে এলাকায় দুটি গ্রুপে পরিনত হয়েছে এবং এনিয়ে উভয়ের মাঝে উক্তেজনা বিরাজ করছে। দ্রত সমাধান না হলে বড় আকারে রক্তক্ষয়ীর ঘটনা ঘটতে পারে। এব্যাপারে প্রশাসন সহ সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করছেন এলাকার সচেতন মহল।