আফগানিস্তানে সামরিক ঘাঁটি তৈরি করতে চাচ্ছে চীন

আফগানিস্তানে জঙ্গি বিরোধী অভিযানের লক্ষ্য নিয়ে এবার দেশটিতে সামরিক ঘাঁটি স্থাপন করতে চাচ্ছে চীন।

কাবুলের সঙ্গে এ বিষয়ে আলোচনা শুরু হয়েছে বলে উভয় দেশের কর্মকর্তারা স্বীকার করেছেন। আফগানিস্তানের ওয়াখান করিডোরে যৌথ উদ্যোগে এই ঘাঁটি বানানোর কথা হচ্ছে বলে জানা গেছে।

ওয়াখান করিডর হল এমন একটি অঞ্চল, যার সঙ্গে আফগানিস্তানের মূল স্রোতের যোগাযোগ বেশ ক্ষীণ। ওয়াখানের উত্তরে অবস্থান করছে পামির, আর দক্ষিণে রয়েছে কারাকোরাম।

দুই দুর্গম পর্বতমালার মাঝখানে ওয়াখান একটা উপত্যকার মতো, পামির আর কারাকোরামের সীমানাও বটে। দুর্গম ওয়াখানে জীবনযাত্রা কঠিন, কিন্তু দীর্ঘ যুদ্ধের প্রায় কোনো ছাপই ওয়াখানে পড়েনি।

ওয়াখানের বাসিন্দাদের অনেকে জানেনই না, তালিবানকে হঠিয়ে আফগানিস্তানে গণতন্ত্র ফেরানোর যুদ্ধে কতটা বিধ্বস্ত হয়েছে গোটা দেশ।

এমন দুর্গম ওয়াখানের পূর্ব প্রান্ত চীনের শিনচিয়াং প্রদেশের সঙ্গে জুড়ে রয়েছে। পশ্চিম চীনের শিনচিয়াঙে সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলিমদের বাস বড় সংখ্যায়। এই উইঘুর জনগোষ্ঠীর সঙ্গে চীনের কমিউনিস্ট কর্তৃপক্ষের বিরোধ দীর্ঘদিনের, তার জেরে উইঘুররা বিদ্রোহীও।

ইস্ট তুর্কিস্তান ইসলামিক মুভমেন্ট (ইটিআইএম বা এতিম) নামে এক জঙ্গি সংগঠন ওই অঞ্চলে সক্রিয় এবং শিনচিয়াং প্রদেশে তারা মাঝেমধ্যেই নাশকতা চালায়। এসব জঙ্গিদের নির্মূল করতে শিনচিয়াং প্রদেশে কঠোর দমন নীতি প্রয়োগ করে আসছে চিন।

জঙ্গি অনুপ্রবেশ রোখার বিষয়ে আফগানিস্তানের সঙ্গে বেশ কিছু দিন ধরেই কথা চালাচ্ছিলো চীন।