মানিকগঞ্জে ফিল্মি স্টাইলে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে

মানিকগঞ্জ:-মানিকগঞ্জ শহরের স্বর্ণকার পট্টির নাগ জুয়েলার্সে ফিল্মি স্টাইলে ডাকাতির ঘটনা ঘটেছে। অস্ত্রের মুখে কয়েকশ ভরি স্বর্ণালংকার লুটে নিয়ে গেছে ডাকাত দল। অস্ত্রধারী মুখোশ পরিহিত যুবকরা চলে যাওয়ার সময় বেশ কয়েকটি ককটেল ফাটিয়ে গাড়িতে করে পালিয়ে যায়। এ সময় পুরো শহরে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে।

নাগ জুয়েলার্সের মালিক চন্দ নাগ জানান, বুধবার সন্ধ্যা সাতটার দিকে তার দোকানে প্রথমে দুই নারী কাস্টমার ঢোকেন। এর পরপরই ডিবি পুলিশের পরিচয় দিয়ে সাত-আটজন অস্ত্রধারী প্যান্ট-শার্ট পরা যুবক তার দোকানে প্রবেশ করেন। এক কর্মচারী তাদের বাধা দিতে গেলে তাকে থাপ্পড় দিয়ে জোরে তারা দোকানো ঢোকে যায়। পরে তারা তাদের কাছে থাকা ব্যাগে দ্রুত স্বর্ণালংকারগুলো ঢোকায়।

দোকানের মালিক ঠিক কত ভরি স্বর্ণ লুট হয়েছে তা সুস্পষ্ট করে জানাতে পারেননি। তবে তাদের ধারণা, কয়েকশ ভরি স্বর্ণ তখন দোকানে ছিল।

 

সিসি টিভির ক্যামেরায় দেখা গেছে, সশস্ত্র যুবকরা ফিল্মি স্টইলে রিভলবার উঁচিয়ে অতর্কিত দোকানে ঢোকে পড়ে। তাদের অনেকের পরনে ছিল মুখোশ। দোকান কর্মীদের মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে তারা দ্রুত স্বর্ণালংকার ব্যাগে ঢোকাতে থাকে।

এসময় আশপাশের দোকানরা এই ডাকাতির ঘটনা সরাসরি দেখতে পান। তবে অস্ত্রের ভয়ে কেউ এগিয়ে আসেননি। এ সময় জেলা শহরের সব দোকানপাট মুহূর্তের মধ্যে বন্ধ হয়ে যায়। ছড়িয়ে পড়ে আতঙ্ক।

সিসি টিভির ফুটেজে দেখা যায়, ডাকাতরা বেশ ঠান্ডা মাথায় অস্ত্র ঠেকিয়ে দোকানে থাকা সব স্বর্ণালংকার লুটে নিয়ে যায়। আশপাশের সবাই দৃশ্যগুলো দেখলেও কারও কিছু করার ছিল না।

মানিকগঞ্জের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জাকির হাসান সাংবাদিকদের জানান, ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। তদন্তসাপেক্ষে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

নাগ জুয়েলার্সের মালিকের বড় ভাই চন্দন নাগ জানান, এটি একটি পরিকল্পিত ডাকাতি। এর সাথে ডিবি পুলিশ জড়িত বলে তিনি দাবি করেন। তবে এ ব্যাপারে পুলিশের কোনো বক্তব্য পাওয়া যায়নি।

 

 

প্রত্যক্ষদর্শী জেলা আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক সুলতানুল আজম আপেল জানান, তিনি দেখেছেন একটি প্রাইভেটকার ও একটি ট্যাক্সিতে করে সশস্ত্রধারী যুবকরা স্বর্ণালংকার লুট করে পালিয়ে যাচ্ছে।